হাইড্রোপনিক

মাটির পরিবর্তে ফোমে বীজ অঙ্কুরিত করা

আমি যেভাবে ফোমে বীজ জার্মিনেট করি

মাটির পরিবর্তে ফোমে বীজ অঙ্কুরিত করার ব্যাপরটা প্রথমবার শুনলে একটু অবিশ্বাস্য মনে হতে পারে। এটা নিয়ে আমার প্রচেষ্টা এবং রেজাল্ট ফেবুতে শেয়ার করার পর বিভিন্নগ্রুফে বিশেষকরে ইনবক্সে অনেকেই এ জার্মনেশন প্রসেসটি জানার আগ্রহ প্রকাশ করায় আপনাদের জন্য সংক্ষেপে প্রসেসটি শেয়ার করছি।

কি কি উপকরণ লাগবে: 
ফোম, ধারালো নাইফ, ফোম ভিজানোর পাত্র, বীজ, বীজ ভিজানোর পাত্র, একটুকরো সুতির কাপড়, ট্রে……

ফোম নির্বাচন করবো কিভাবে: 
বাজারে সাধারণত পাওয়া যায় এমন ফোম ব্যবহার করতে পারেন। আপনার নির্বাচিত ফোমটি ১ ইন্ঞি উচ্চতার হওয়া উচিত। তবে, রঙ্গিন ফোম পরিহার করলে ভালো, তাতে কালার ব্লিডিং করে খারাপ প্রভাব পড়ার সম্ভাবনা থাকে (মাটিবিহীন চাষাবাদে)।

# জার্মিনেশনের জন্য ফোম কিভাবে তৈরী করবো: 
১” X ১” X ১” সাইজে ফোম কেটে নিতে হবে। বর্গাকৃতির, ত্রিভুজাকার, গোলাকার …পচন্দসই শেইভ দিয়ে টুকরো করতে পারেন। তবে ত্রিভুজাকার করলে কন্জামশন কম হবে। প্রত্যেকটি টুকরো ফোমের মাঝখানে বীজ বপনের উপযোগী স্থান কেটে রাখুন ধারালো নাইফে।

পানি ভর্তি পাত্রে টুকরো ফোমগুলো ভিজিয়ে রেখে ফোমের সর্বোচ্চ ধারণ ক্ষমতা অনুযায়ী পানি শোষন করানো শেষ হলে পানি থেকে উঠিয়ে শুকনো স্থানে রাখুন যাতে অতিরিক্ত পানি গড়িয়ে যায় এবং কিছু বাতাম ধারণ করতে পারে, তবে নিংড়ানো যাবে না। অতিরিক্ত পানি গড়িয়ে গেলে, ফোমগুলো ট্রেতে রাখুন এবং অঙ্কুরিত বীজ গুলো ফোমে বপন করুন।

বীজ কিভাবে তৈরী করবো: 
নির্বাচিতবীজগুলো একটি পাত্রে পানিতে ভিজিয়ে রাখতে হবে। সাধারণত আমি ৮-১০ ঘন্টা ভিজিয়ে রাখি, তবে যেসব বীজের চামড়ার পুরুত্ব বেশী ওসব বীজ তুলনামূলক বেশী সময় ভিজিয়ে রাখি। নির্দিষ্ট সময় শেষে বীজগুলো পানি থেকে উঠিয়ে সুতির কাপড় ভিজিয়ে নিংড়ানোর পর বীজগুলো মুড়িয়ে হালকা অন্ধকার এবং আর্দ্র পরিবেশে রাখতে হবে। সকালে সন্ধ্যায় হালকা স্প্রে করতে পারেন যদি শুকনো মনে হয়, তবে পানি বেশী হলে বীজ পচে যেতে পারে। ২/৩ দিন পর চেক করলে দেখতে পাবেন বীজ অঙ্কুরিত হয়েছে (সব বীজের অঙ্কুরিত হওয়ার সময় একই না, তাই সববীজ একসাথে অঙ্কুরিত না হতেও পারে)। অঙ্কুরিত বীজ গুলো ফোমের মাঝখারে কাটা স্থানে বপন করুন। ফোমের উপরিভাগ শুকনো মনে হলে পানি স্প্রে করুন। ইন শা আল্লাহ্ অঙ্কুরিত বীজগুলো জেগে উঠবে। তখন পানিতে মিশিয়ে অল্প কিছু পুষ্টি সরবরাহ করলে ইন-শা-আল্লাহ চারাগাছে রুপান্তিত হবে ধীরে ধীরে।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a Reply

Logo
Reset Password
Compare items
  • Total (0)
Compare
0