বারি সাতকরা-১

বারি সাতকরা-১

বৈশিষ্ট্য : উচ্চ ফলনশীল নিয়মিত ফলদানকারী জাত। গাছ মাঝারী, মধ্যম ছড়ানো ও মধ্যম ঝোপালো। চৈত্র-বৈশাখ মাসে গাছে ফুল আসে এবং শীতের প্রারম্ভে (সপ্টেম্বর-নভেম্বর) ফল পাকতে শুরু করে। ফল মধ্যম আকারের (৩৩০ গ্রাম) কমলালেবুর মত চ্যাপ্টা। পাকা ফল হালকা হলুদ বর্ণের।
উপযোগী এলাকা  : বৃহত্তর সিলেট, চট্টগ্রাম ও পার্বত্য জেলাসমূহে চাষ উপযোগী।
বপনের সময়  : বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ এবং ভাদ্র-আশ্বিন মাস সাতকরার চারা/কলম রোপণের উপযুক্ত সময়।
মাড়াইয়ের সময়:  চৈত্র-বৈশাখ মাসে গাছে ফুল আসে এবং শীতের প্রারম্ভে (সপ্টেম্বর-নভেম্বর) ফল পাকতে শুরু করে।
ফলন: ১০ টন/হেক্টর

 রোগবালাই ও দমন ব্যবস্থা

 রোগবালাই: 
গামোসিসঃ এ রোগের আক্রমণে গাছের কান্ড, ডাল বাদামি রংয়ের হয়ে যায় ও ডালে লম্বালম্বি ফাটল দেখা দেয় এবং ফাটল থেকে আঠা বের হতে দেখা যায়।
ডাইব্যাকঃ আক্রান্ত গাছের পাতা ঝরে যায় এবং কচি ডাল আগা থেকে শুকিয়ে মরে যেতে থাকে।
 দমন ব্যবস্থা: 
গামোসিস প্রতিকারঃ আক্রান্ত ডাল কেটে ফেলে অথবা আক্রান্ত অংশ চেঁছে ফেলে বর্দোপেস্ট ব্যবহার করা উচিত। পানি নিষ্কাশনের ব্যবস্থা করা ও সেচের পানি গাছের কান্ড ম্পর্শ করা থেকে বিরত রাখা ভাল।
ডাইব্যাক প্রতিকারঃ আক্রান্ত ডাল কেটে ফেলা এবং কর্তিত অংশে বর্দোপেস্ট লাগানো ভাল। আক্রান্ত গাছে ইন্ডোফিল এম-৪৫ (০.২%) অথবা বর্দোমিশ্রন (১%) স্প্রে করতে হবে।

 পোকামাকড় ও দমন ব্যবস্থা

 পোকামাকড়: 
লিফমাইনারঃ এ পোকার ক্ষুদ্র কীড়াগুলো পাতায় আঁকা-বাঁকা সুড়ঙ্গ করে সবুজ অংশ খেয়ে ফেলে। এতে পাতা কুঁকড়ে বিবর্ণ হয়ে শুকিয়ে যায় ও গাছের বৃদ্ধি ব্যহত হয় এবং ক্যাঙ্কার রোগ দ্বারা আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়।
লেবুর প্রজাপতি পোকা (লেমন বাটারফ্লাই) : এ পোকার কীড়া পাতা খেয়ে ফেলে। এ জন্য ফলন ও গাছের বৃদ্ধি ব্যাহত হয়।
 দমন ব্যবস্থা: 
লিফমাইনার দমন ব্যবস্থা : গাছে নতুন পাতা গজানোর সময় রগর/রক্সিয়ন/পারফেকথিয়ন ৪০ ইসি ২ মিলিলিটার হারে প্রতি লিটার পানিতে মিশিয়ে অথবা ম্যালাথিয়ন/সুমিথিয়ন ১ মিলিলিটার হারে প্রতি লিটার পানিতে মিশিয়ে ১৫ দিন পর পর ২ বার স্প্রে করতে হয়।
লেবুর প্রজাপতি পোকা (লেমন বাটারফ্লাই) দমন ব্যবস্থা : ডিম ও কীড়াযুক্ত পাতা সংগ্রহ করে মাটির নীচে পুঁতে বা পুড়িয়ে ফেলতে হয়। সুমিথিয়ন ৫০ ইসি/লিবাসিড ৫০ ইসি ২ মিলিলিটার প্রতি লিটার পানিতে মিশিয়ে ১০-১৫ দিন পর পর প্রয়োগ করতে হয়।

 সার ব্যবস্থাপনা

সারের নাম গাছের বয়স(বছর)
১-২ ৩-৪ ৫-১০ ১০ বছরের উর্দ্ধে
গোবর (কেজি) ৭-১০ ১০-১৫ ২০-২৫ ২৫-৩০
ইউরিয়া (গ্রাম) ১৭৫-২২৫ ২৭০-৩০০ ৫০০-৬০০ ৬০০-৭০০
টিএসপি (গ্রাম) ৮০-৯০ ১৪০-১৭০ ৪০০-৪৫০ ৪৫০৫০০
এমওপি(গ্রাম) ১৪০-১৬০ ৪০০-৫০০ ৫০০-৫৫০ ৬০০-৬৮০

প্রয়োজনে সংশ্লিষ্ট বিশেষজ্ঞের সাথে কথা বলুন।

We will be happy to hear your thoughts

Leave a Reply

Logo
Reset Password
Compare items
  • Total (0)
Compare
0